এবার ফ্রান্স-জার্মানিতেও ধরা পড়ল মাঙ্কিপক্স

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: এবার ফ্রান্স এবং জার্মানিতেও ধরা পড়ল মাঙ্কিপক্স। শুক্রবার এই দুই দেশ তাদের প্রথম মাঙ্কিপক্স রোগী সনাক্ত করার কথা জানিয়েছে। আফ্রিকা থেকে রোগটি ইউরোপ এবং উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ছে।

ফ্রান্সের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ শুক্রবার জানিয়েছে, ইলে-ডি-ফ্রান্স অঞ্চলে ২৯বছর বয়সী এক ফরাসি নাগরিকের দেহে মাঙ্কিপক্স সনাক্ত করা হয়েছে। দেশটির রাজধানী প্যারিসও ওই অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত। তবে ওই ব্যক্তির দেহে ভাইরাসটি কীভাবে ছড়ালো তা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে রহস্য। কারণ তিনি সম্প্রতি এমন কোনো দেশে ভ্রমণ করেননি যেখানে মাঙ্কিপক্স রোগী রয়েছে।

ওদিকে, জার্মান সশস্ত্র বাহিনীর মাইক্রোবায়োলজি ইনস্টিটিউট বলেছে, তারা এমন একজন রোগীর মধ্যে ভাইরাসটির উপস্থিতি নিশ্চিত করেছে যার ত্বকে ক্ষত রয়েছে। ওই ক্ষত এই রোগের একটি উপসর্গ।

ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশে মাঙ্কিপক্স রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলায় জার্মানির স্বাস্থ্য সংস্থা রবার্ট কোচ ইনস্টিটিউট, পশ্চিম আফ্রিকা থেকে ফিরে আসা লোকদের এবং বিশেষ করে সমকামী পুরুষদের তাদের ত্বকে কোনও সমস্যা দেখতে পেলে দ্রুত ডাক্তারের সঙ্গে দেখা করার আহ্বান জানিয়েছে।

মাঙ্কিপক্স একটি বিরল রোগ। তবে এটি সাধারণত খুব মারাত্মক নয়। এই রোগের ভাইরাসে আক্রান্ত হলে জ্বর, পেশীতে ব্যথা, লসিকাগ্রন্থি ফুলে যাওয়া, ঠাণ্ডা লাগা, ক্লান্তি এবং হাত ও মুখে চিকেনপক্সের মতো ফুসকুড়ি দেখা দেয়।

ভাইরাসটি সংক্রামিত ব্যক্তির ত্বকের ক্ষত এবং সেই ক্ষত থেকে বের হওয়া তরলের সংস্পর্শ, পাশাপাশি সেই রোগীর ব্যবহৃত বিছানা এবং তোয়ালের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, তারা বিষয়টি নিবিড়ভাবে খতিয়ে দেখছে। অভিযোগ উঠেছে সমকামী ও উভকামী যৌন চক্রের মাধ্যমেও এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, এবার এই ভাইরাসের সংক্রমণ-পথ চিহ্নিত করতে, বিভিন্ন ‘বার’ ও ‘সনা’য় অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ব্রিটেনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। তাদের আশঙ্কা মূলত সমকামী ও উভকামী পুরুষদের যৌনচক্র থেকেই ছড়িয়েছে মাঙ্কিপক্স ভাইরাসের সংক্রমণ।

গত ৭ মে প্রথম মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত রোগীর হদিস মেলে লন্ডনে। ওই ব্যক্তি সম্প্রতি নাইজেরিয়া থেকে ফিরেছিলেন। তাই বিশেষজ্ঞদের ধারণা ছিল, আফ্রিকাতেই কোনোভাবে ওই ব্যক্তি এই ভাইরাসের সংস্পর্শে আসেন। কিন্তু তারপর কীভাবে আরও ছয় জন এই রোগে সংক্রমিত হলেন, তা নিয়ে নিশ্চিত ছিলেন না বিশেষজ্ঞরা।

ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় সূত্রে খবর, নতুন আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ছয় জন সমকামী ও উভকামী পুরুষ। সম্প্রতি পুরুষ সঙ্গীর সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন এই ছয় জনের প্রত্যেকেই। শুধু ব্রিটেন নয়, স্পেন ও পর্তুগালে যথাক্রমে ৭ ও ৯ জন পুরুষ আক্রান্ত হয়েছেন এই ভাইরাসে, যাদের অধিকাংশই সমকামী কিংবা উভকামী পুরুষ বলেই জানা গেছে। তাই সমকামী পুরুষদের আপাতত অতিরিক্ত সতর্ক থাকার পরামর্শও দিয়েছে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়।

ইতিমধ্যেই, ইতালি, পর্তুগাল, স্পেন এবং সুইডেনের পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডাতেও মাঙ্কিপক্সের রোগী সনাক্ত হয়েছে। যার ফলে এই রোগটি মধ্য এবং পশ্চিম আফ্রিকা ছাড়িয়ে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ডব্লিউএইচও জানায়, মাঙ্কিপক্স রোগীরা সাধারণত দুই থেকে চার সপ্তাহ পরই সুস্থ হয়ে উঠেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন