নিউ মার্কেটে সংঘর্ষ : গ্রেপ্তার আরও তিনজন

জাতীয়

খবরটুডে ডেস্ক:: রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় শিক্ষার্থী ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাতকারী দুজনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ ছাড়া সংঘর্ষে হত্যাকাণ্ডে জড়িত আরেকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বুধবার (৪ মে) দিনগত রাতে শরীয়তপুর ও কক্সবাজার এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার (৫ মে) বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর কারওয়ানবাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান জানান, সম্প্রতি ঢাকার নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষে দুজন নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত একজন এবং সংঘর্ষের সূত্রপাতকারী দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজকের সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরা হবে বলে জানান তিনি।

গত ২১ এপ্রিল সংঘর্ষের ঘটনায় বিস্ফোরক আইন ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে নিউ মার্কেট থানায় দুটি মামলার কথা জানায় পুলিশ। নিউ মার্কেট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মেহেদী হাসান ও পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়ামিন কবির বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেন। এ মামলার প্রধান আসামি বিএনপির সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ছাড়া সংঘর্ষে নিহত নাহিদের বাবা মো. নাদিম হোসেন বাদী হয়ে নিউ মার্কেট থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলায় তিনি অজ্ঞাতপরিচয় আসামি উল্লেখ করেন।

এর একটি মামলায় পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে ২৪ জন এজাহারনামীয়সহ ব্যবসায়ী-কর্মচারী অজ্ঞাতপরিচয় ৩০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ছাড়া একই মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে ঢাকা কলেজের ৭০০ শিক্ষার্থীকে আসামি করা হয়েছে। বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে দায়ের করা অপর মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ১৫০ থেকে ২০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

গত ২৮ এপ্রিল এ মামলায় ঢাকা কলেজের পাঁচ শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তারের কথা জানায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তারা সশস্ত্রভাবে হামলার অগ্রভাবে অংশ নেয় বলে দাবি করে ডিবি। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন হিসাববিজ্ঞান বিভাগের আব্দুল কাইয়ূম, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের পলাশ ও ইরফান, বাংলা বিভাগের ফয়সাল, ইসলামের ইতিহাস বিভাগের জুনায়েদ।

উল্লেখ্য, গত ১৮ এপ্রিল রাতে ও ১৯ এপ্রিল দুপুরে নিউ মার্কেটের দোকান-মালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সংঘর্ষ হয়। এতে নাহিদ ও মোরসালিন নামে দুজনের প্রাণহানি এবং অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। এ ঘটনায় অন্তত তিনটি মামলা দায়ের হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন