ঈদের কেনাকাটা করে বাড়ি ফেরা হল না যুবকের

সারাদেশ

খবরটুডে ডেস্ক:: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ঈদের জন্য কেনাকাটা করে বাড়িতে ফেরা হল না মেরাজ মিয়া (২৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহীর।

সোমবার দিবাগত রাত ২টায় উপজেলার মুন্সীবাজার-মৌলভীবাজার সড়কের বাবুরবাজার নামক স্থানে অন্ধকারের মধ্যে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নির্মাণাধীন একটি সেতুর নিচে মোটরসাইকেল নিয়ে পড়ে গিয়ে মৃত্যু হয় তার।

নিহত মেরাজ উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিগাঁও গ্রামের মৃত জাহির মিয়ার ছেলে। রাতেই খবর পেয়ে কমলগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশের সদস্যরা গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেন।

তবে স্থানীয়দের দাবি, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির কারণে এমন হয়েছে। বাবুরবাজার এলাকায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্মাণাধীন একটি সেতুর কাজ চলছে অনেক দিন ধরে। কিন্তু নিমার্ণাধীন এ সেতুর দুপাশে কোনো সর্তকমূলক সাইনবোর্ড না থাকায় অন্ধকারের মধ্যে দ্রুতগতিতে চলাচলের সময় পড়ে গিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঈদের আগের দিন সোমবার রাতে মৌলভীবাজার জেলা শহর থেকে কেনাকাটা করে বাড়ি ফিরছিলেন নিহত মেরাজ। রাত ২টার দিকে মুন্সীবাজার-মৌলভীবাজার সড়কের বাবুরবাজার এলাকায় নির্মাণাধীন একটি সেতুর নিচে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পরে যান তিনি। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

এ সময় তার সাথে থাকা জিনিসপত্র ব্যাগ থেকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে চারপাশে। পরে এ পথে চলাচলকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালকরা এগিয়ে গিয়ে মৃতদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশে খবর দিলে রাতেই লাশ উদ্ধার করা হয়।

মুন্সীবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাহিদ আহমেদ তরফদার বলেন, ‘ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির কারণেই এ ঘটনা ঘটল। নিমার্ণাধীন সেতুটির সামনে সর্তকমূলক সাইনবোর্ড থাকলে অন্ধকারের মধ্যে এমন ঘটনা ঘটত না।’

মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আরিফ হোসাইন বলেন, ‘এ সড়কে নির্মাণাধীন প্রতিটি সেতুর উভয় পাশে সতর্কমূলক সাইনবোর্ড দেওয়া আছে। ঘটনার দিন সাইনবোর্ড নিশ্চয় কেউ সরিয়েছে অথবা চুরি করেছে। সাইনবোর্ডের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান বলেন, ‘রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন