তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রচারণা রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: অন্য কোনো দেশ ইউক্রেনে হস্তক্ষেপ করলে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের ‘বাস্তব’ হুমকির বিষয়ে গত সোমবারই সতর্ক করেছিল রাশিয়া। এবার ভ্লাদিমির সলোভিওভ নামে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেলের এক হোস্ট ইউক্রেনের বাইরেও যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করার সময় দর্শকদের উদ্দেশ্যে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন। তিনি বলেন যে, পারমাণবিক যুদ্ধ হলেও ‘ঠিক আছে’, কারণ, ‘আমাদের সবাইকেই একদিন মরতে হবে’।

নিউজউইকের প্রতিবেদন অনুসারে, ‘দ্য ইভনিং উইথ ভ্লাদিমির সলোভিওভ’ এর মঙ্গলবার রাতের পর্বে হোস্ট ভ্লাদিমির সলোভিওভ বলেন যে, ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার যুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলোকে হস্তক্ষেপ করা থেকে বিরত রাখার উপায় হিসেবে পারমাণবিক যুদ্ধ একটি বাস্তব সম্ভাবনা।

এসময় তার সঙ্গে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আরটির প্রধান মার্গারিটা সিমোনিয়ানও উপস্থিত ছিলেন। ভ্লাদিমির সলোভিওভ এর ওই মন্তব্যের পর সিমোনিয়ান যোগ করেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি সবচেয়ে বাস্তবসম্মত উপায় হল তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পথ। যারা আমাদেরকে জানে তারা জানে যে, আমাদের নেতা ভ্লাদিমির ভ্লাদিমিরোভিচ পুতিন এবং আমরা কখনোই হাল ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নই। এটা অসম্ভব, আমাদের হাল ছেড়ে দেওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই’।

দ্য ডেইলি বিস্ট রিপোর্ট করেছে, মিসেস সিমোনিয়ান বলেছেন যে, ‘একটি পারমাণবিক হামলার মাধ্যমেই সবকিছু শেষ হবে, যা আমার কাছে অন্য যে কোনো উপায়ের চেয়ে বেশি সম্ভাব্য মনে হয়। এটা ভেবে আমি আতঙ্কিত হই, কিন্তু অন্যদিকে আবার এটাও বুঝতে পারি যে, এটাই বাস্তবতা’। সলোভিওভ তখন চিৎকার করে বলেন, ‘তবে আমরা স্বর্গে যাব, আর তারা কেবল অসন্তোষ প্রকাশ করবে’।

এসময় মিসেস সিমোনিয়ান শ্রোতাদের সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, ‘আমাদের সবাইকেই একদিন না একদিন মরতে হবে’।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমগুলোতে প্রায় প্রতদিনই ঘোষণা দেওয়া হচ্ছে যে, তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ আসন্ন। বেশ কয়েকটি রাশিয়ান টেলিভিশন চ্যানেল ইউক্রেন ইস্যুতে তৃতীয় বিশ্ব অনিবার্য বলে প্রচার করছে। এমনটা আগে কখনও দেখা যায়নি।

রাশিয়ান নাগরিকদের ধারণা দেওয়া হচ্ছে যে, এমনকি এই যুদ্ধের সবচেয়ে খারাপ ফলাফলও তাদের জন্য ভাল। কারণ যারা জাতির জন্য মারা যাবে তারা বেহেশতে যাবে।

গত সোমবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের ঝুঁকি একটি ‘বাস্তব’ সম্ভাবনা বলে সতর্ক করেছিলেন।

ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার নীতিতে কৌশলগত পরিবর্তনের আভাস দেওয়ার পর এই হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। রবিবার ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে এক সফর শেষ করে পোল্যান্ডে ফিরে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল লয়েড অস্টিন খোলাখুলি বলেছিলেন শুধু এই যুদ্ধে পরাজয় নয়, রাশিয়ার সামরিক শক্তি চিরতরে দুর্বল করে দেওয়াই এখন যুক্তরাষ্ট্রের মূল লক্ষ্য।

জেনারেল অস্টিনের এই বক্তব্যের পরদিন ক্ষুব্ধ রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেছেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটও এখন রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে।

সোমবার রাতে রুশ টিভি চ্যানেল রাশিয়া ফার্স্টে এক সাক্ষাৎকারে লাভরভ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এবং ন্যাটো জোট যদি ইউক্রেনকে ঢালাওভাবে অস্ত্র দেওয়া বন্ধ না করে তাহলে পারমাণবিক সংঘাত এবং তার জেরে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হতে পারে।

তিনি বলেন, ‘এমন ঝুঁকি এখন খুবই বাস্তব একটি সম্ভাবনা, সেই ঝুঁকি এখন অনেক অনেক বেশি’।

সংবাদটি শেয়ার করুন