ইউক্রেন উপকূলের কাছে রাশিয়ার ৮ যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: রাশিয়ার বিরুদ্ধে কৃষ্ণসাগরে ইউক্রেনের উপকূলের কাছে আটটি যুদ্ধজাহাজ মোতায়েনের দাবি করেছে কিয়েভ। টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে এমন দাবি করেছেন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওলেক্সান্ডার মোতুজয়ানিক। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

ওলেক্সান্ডার মোতুজয়ানিক বলেন, রুশ যুদ্ধজাহাজগুলো একবারে মোট ৫৮টি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করতে সক্ষম। ফলে ইউক্রেনের উপকূলের কাছে সেগুলোর উপস্থিতি ইউক্রেনীয়দের ‘বিপন্ন’ করে তুলবে।

এর আগে গত ১৪ এপ্রিল রুশ নৌবাহিনীর কৃষ্ণসাগর বহরের প্রধান যুদ্ধজাহাজ মস্কোভা ডুবে যায়। জাহাজটিতে নিজেদের নির্মিত জাহাজ বিধ্বংসী নেপচুন ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কথা জানায় কিয়েভ। রাশিয়ার পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করা হলেও দানবীয় আকারের নৌযানটিতে আগুন ধরে যাওয়ার কথা স্বীকার করা হয়। ওই সময়ে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দাবি করেছিল, যুদ্ধজাহাজটির আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে। পরে মস্কো দাবি করে, আগুন ধরে যাওয়ার পর একপর্যায়ে ঝড়ের কবলে পড়ে সেটি ডুবে যায়।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ওই ঘটনায় তাদের একজন নাবিক নিহত হয়েছেন। এছাড়া নিখোঁজ হয়েছেন আরও ২৭ জন নাবিক। উদ্ধার করা হয়েছে বাকি ৩৯৬ জন নাবিককে।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান নিয়ে ব্যর্থতার বৃত্তে থাকা রাশিয়ার জন্য এই ঘটনা ছিল আরেকটি বড় ধরনের আঘাত। ইউক্রেন যুদ্ধের ৫০তম দিনে জাহাজটি ডুবে যায়। আর এমন সময় এই ঘটনা ঘটে যখন রাশিয়া পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস অঞ্চলে বড় ধরনের আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। মস্কোভার মতো দানবীয় আকারের ফ্ল্যাগশিপ জাহাজটি ডুবে যাওয়ার পর এবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেনের উপকূলের কাছে নতুন করে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েনের অভিযোগ করলো কিয়েভ।

সংবাদটি শেয়ার করুন