‘এ বছর বিদেশে ১০ লাখ কর্মীর কর্মসংস্থান হতে পারে’

জাতীয়

খবরটুডে ডেস্ক:: চলতি বছর ১০ লাখ কর্মী বিদেশে কাজ নিয়ে যেতে পারবে বলে আশাবাদ জানিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ। তিনি বলেন, বর্তমানে প্রতিমাসে গড়ে এক লাখ কর্মী বিদেশে যাচ্ছেন। এর মধ্যে ৭০ থেকে ৮০ হাজার কর্মীর গন্তব্যই সৌদি আরব। সব মিলিয়ে এ বছর ১০ লাখ কর্মীর বিদেশে কর্মসংস্থান হতে পারে।

বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে অংশীজনদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা ও ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, গত দুই মাসে ১ লাখ ৭০ হাজার ভিসা ইস্যু করেছে ঢাকায় সৌদি দূতাবাস। প্রতিদিন গড়ে ৪ হাজার ভিসা ইস্যু করেছে দেশটি। কর্মীদের প্রশিক্ষণের যে গতিতে আমরা ছিলাম, করোনা এসে সেটিতে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছে।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন বলেন, বিদেশে কর্মী পাঠাতে এখন আমরা দক্ষতার ওপর জোর দিচ্ছি।

রামরুর সিআর আবরার বলেন, কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলোকে গ্লোবালি কম্পেয়ার করে আরও শক্তিশালী করে তুলতে হবে। ট্যুরিজম ও হসপিটালিটির ক্ষেত্রেও নজর দিতে হবে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন বিষয়ক সংস্থার (আইওএম) বাংলাদেশ ডেপুটি চিফ অব মিশন ফাতিমা নুসরাত গাজ্জালী বলেন, বিশেষ করে রেমিট্যান্স প্রবাহটা যেমন আমরা দেখছি, একইভাবে বাংলাদেশের অভিবাসন ক্ষেত্রটাও দেখতে হবে।

আইএলও’র প্রতিনিধি লেটেশিয়া ওয়েবেল বলে, শ্রমিকদের জন্য নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করতে হবে, যেন তারা তাদের পূর্ণ দক্ষতাকে কাজে লাগাতে পারে।

এসময় অন্যান্য অংশীজনরা তাদের বক্তব্যে অভিবাসন খাতে আরও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তারা মালয়েশিয়া ও লিবিয়ার শ্রমবাজারে পুনরায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী পাঠানোর ওপর জোর দেন। এছাড়া রোমানিয়ার শ্রমবাজার নিয়েও তারা আশা প্রকাশ করেন।

মতবিনিময় সভায় ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের ডেলিগেশন প্রধান, ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রধান, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা আইওএম ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা আইএলওর প্রতিনিধি, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ অন্যরা অংশ নেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন