সাতপাক সেরেই উষ্ণতায় মিলেমিশে একাকার ‘রণলিয়া’

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক:: বলিউডের নবদম্পতি রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাটের বিয়ের ছবি নিয়ে লুকোচুরি করেননি। বরং সাত পাকে বাঁধা পড়ার পর খুব একটা সময় না নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে হাজির হয়েছেন এই দুই তারকা। যাদের বিয়ের খবর গোটা দুনিয়ায় আলোচিত, তাদের একসঙ্গে সামনে পেয়ে পাপারাজ্জিরা এক সেকেন্ডও সময় নষ্ট করেননি। টানা শাটার পড়েছে ক্যামেরায়। একপর্যায়ে নববধূকে কোলে তুলে নেন বর। তখন হইহই রব পড়ে যায়।

বৃহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল) ভারতীয় সময় দুপুর ৩টা ৩০ মিনিটে শুরু হয় রণবীর-আলিয়ার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। বরের ‘বাস্তু’ বাড়িতে বসে বিবাহ আসর। সামনে ছিল কড়া নিরাপত্তা। প্রায় ২০০ বাউন্সার ঘুরছে বাংলোর চারকোণে। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়েই বিয়ের শুভ কাজ সেরে ফেললেন দুই তারকা পরিবারের দুই সন্তান।

বছর চারেক প্রেমের পর বৃহস্পতিবার অবশেষে একে-অপরের গলায় মালা পরিয়ে ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস কাপুর’ হলেন রণবীর-আলিয়া।

সূত্রের খবর, মণ্ডপে অতিথিদের গায়ত্রী মন্ত্র উচ্চারণের মধ্য দিয়েই অগ্নিসাক্ষী রেখে সাত পাক ঘুরেছেন রণবীর-আলিয়া। প্রয়াত ঋষি কাপুরের কথা মনে করে আবেগে ভাসলেন রণবীরের মা নীতু কাপুর। নবদম্পতিকে ঘিরে রসিকতা-ঠাট্টায় মজেছেন অতিথিরাও।

আলিয়ার তরফ থেকে আগেই সংবাদকর্মীদের জানানো হয়েছিল, বিয়ের পর সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ নবদম্পতি নিজেরাই ক্যামেরার সামনে ধরা দেবেন।

ঘরোয়াভাবে বিয়ের আয়োজন, তাই অতিথি তালিকাও ছোট। পাত্রপক্ষে ছিলেন নীতু, রিধিমা, রণধীর-ববিতা, কারিশমা এবং সাইফ-কারিনা।

অন্যদিকে, রণবীরের শ্বশুরমশাই মহেশ ভাট ততধিক উচ্ছ্বসিত। কনে পক্ষের তরফে সাক্ষী মা সোনি রাজদান, দিদি শাহিন ও পূজা ভাট, সৎ ভাই রাহুল ভাট।

আলিয়ার প্রথম ছবি ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’-এর পরিচালক করণ জোহর, রণবীর-আলিয়া জুটির প্রথম ছবি ‘ব্রক্ষ্মাস্ত্র’র পরিচালক অয়ন মুখোপাধ্যায়রা ছিলেন বিয়ের আসরে। আম্বানি পরিবারের সদস্যরাও আশীর্বাদ দিতে আসেন রণবীর-আলিয়াকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন